শিখা চিরন্তন কোথায় অবস্থিত

প্রিয় পাঠক আসসালামু আলাইকুম আজকের এই টিউটোরিয়ালে শিখা চিরন্তন কোথায় অবস্থিত এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে আপনি যদি না জেনে থাকেন যে শিখা চিরন্তন কোথায় অবস্থিত তাহলে এই টিউটোরিয়াল টি আপনার জন্য যার মাধ্যমে আপনি শিখা চিরন্তন কোথায় অবস্থিত এবং শিখা চিরন্তন কি? শিখা চিরন্তন এর স্থপতি আবিষ্কার ও ইতিহাস সম্পর্কে আরো কিছু তথ্য জানতে পারবেন।

শিখা চিরন্তন কোথায় অবস্থিত

শিখা চিরন্তন কি

মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যান্য স্থাপনা শিখা চিরন্তন আমাদের দেশপ্রেমের চেতনায় উদ্দীপ্ত করে। আমাদের মহান মুক্তিযোদ্ধার স্মৃতিকে বুকে ধারণ করে তৈরি করা হয়েছে শিখা চিরন্তন। দিন রাত জ্বলছে এই অগ্নি শিখা জ্বলে জ্বলে নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে দেশ প্রেম অমীয় বার্তা শিখা চিরন্তন রাজধানী ঢাকা সোহরাওয়ার্দী  উদ্যানে অবস্থিত মুক্তিযোদ্ধাদের একটি স্মরণ স্থাপনা। ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই স্থানটিতে দাঁড়িয়ে ঐতিহাসিক ভাষণ প্রদান করেন। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকে বিজড়িত সরোয়ারদী উদ্যানে স্থাপনা গুলো থাকায় নতুন প্রজন্মের ছেলে মেয়েরা অনেক আনন্দিত। তাদের প্রত্যাশা এভাবে দেশের অন্যত্রও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিময় স্থানের চিহ্নিত করা উচিত। 

শিখা চিরন্তন এর স্থপতি কে

বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ ও পাকিস্তানি বাহিনীর আত্মসমর্পণের দলিল স্বাক্ষরের স্থানটিকে স্মরণ করে রাখতে ১৯৯৬ সালের শিখার চিরন্তন স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এ উপলক্ষে ১৯৯৭ সালের ৭ই মার্চ তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিখা চিরন্তন প্রজ্বলন করেন এবং দেশব্যাপী  শুভযাত্রা উদ্বোধন করেন।১৭ই মার্চ ১৯৯৭ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মস্থান গোপালগঞ্জে টুঙ্গিপাড়া ছুয়ে ২৬ শে মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পৌঁছায় শিখার চিরন্ত। ঐ দিন এটি স্থাপন করেন বিশ্বনন্দিত চার নেতা । শান্তিতে নোবেল বিজয়ী দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি নেলসন ম্যান্ডেলা ফিলিস্তিনের ইয়াসিন আরাফাত তুরস্কের সুলেমান ডেমিরেল  এবং বাংলাদেশের তৎকালীন ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ ১৯৯৯ সালের সরোয়ারদের শিখা চিরন্তন স্থাপন করা হয়।

শিখা চিরন্তন কোথায় অবস্থিত 

শিখা চিরন্তন রাজধানী ঢাকার সরোয়ারদী উদ্যানে অবস্থিত একটি স্মরণ স্থাপনা। ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান  এই স্থানটি দিতে দাঁড়িয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ প্রদান করেন এবং পাকিস্তানি বাহিনীর আত্মসমর্পণের দলিল স্বাক্ষরের স্থান ওদিন কে স্মরণ করিয়ে দেয়। ৭ই মার্চ এর স্মৃতিসরনে ১৯৯৭ সালের ২৬ শে মার্চ শিখার চিরন্তন উদ্বোধন করা হয়।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url